আনোয়ারায় আ.লীগ’র উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী সালাহউদ্দিন লিপু

0

নিজস্ব প্রতিবেদক,আনোয়ারা :  আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আনোয়ারা উপজেলা চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে আবেদন জমা দিয়েছেন বিশিষ্ট রাজনীতিবীদ, কলামিষ্ট, গবেষক, সংগঠক ও আইনজীবি এডভোকেট সালাহউদ্দিন আহমদ চৌধুরী লিপু । একজন পরিচ্ছন্ন, সৎ, নির্লোভ, মেধাবী, নিষ্ঠাবান, প্রাজ্ঞ ব্যক্তি তিনি আওয়ামীলীগের ত্যাগী, পরিশ্রমী, পরিক্ষিত, র্দুদিনের কান্ডারি ও নিবেদিত প্রাণ। উদারমনা, দানশীল ও পরোপকারী এই  ব্যক্তি ১৯৬৯ সালের ১৭ জানুয়ারী চট্টগ্রাম জেলার আনোয়ারা উপজেলার বটতলী গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত ও বনেদী পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

তার পিতামহ মরহুম আবদুল আজিজ চৌধুরী ও মরহুম আলহাজ্ব এয়াকুব আলী চৌধুরী তারা উভয়ে বটতলী ইউ,পির দীর্ঘদিন প্রেসিডেন্ট/চেয়ারম্যান ছিলেন। তার পিতা মরহুম আলহাজ্ব ছালেহ আহমদ চৌধুরী তৎকালীন চট্টগ্রাম জেলা জজ আদালতের সাবেক জুরার (বিচারক) ছিলেন। তার পিতামহ দ্বয়ও তৎকালীন চট্টগ্রাম জেলা জজ আদালতের সাবেক জুরার (বিচারক) ছিলেন। বটতলী শাহ্ মোহছেন আউলিয়া ডিগ্রি কলেজ,উচ্চ বিদ্যালয়, প্রাথমিক বিদ্যালয়, দাখিল মাদরাসা সহ বিভিন্ন মসজিদ ও মক্তব তার পিতা ও পিতামহ প্রতিষ্ঠা করেন।

বিশিষ্ট আইনজীবি ও রাজনীতিবীদ সালাহউদ্দিন লিপু ১৯৯৮ সালে চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবি সমিতিতে আইন পেশায় যোগদান করেন। সুনাম ও দক্ষতার সাথে তিনি দীর্ঘদিন আইন পেশায় নিয়োজিত আছেন। আইন পেশা এবং সাহিত্য চর্চার পাশাপশি রাজনীতি ও সমাজ সেবায় সর্বদা তিনি নিজেকে নিয়োজিত রাখেন। তিনি রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান, অতীতেও তার পরিবার অসহায়, দুঃখী ও নির্যাতিত মানুষের সহায়তা ও সেবা করেছেন।

পারিবারিক ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় তিনিও জনসেবায় নিজেকে আত্মনিয়োগ করেছেন। নিরাহংকার ও সদালাপী এড. সালাহ্উদ্দিন লিপু বনেদী পরিবারে জন্মগ্রহণ করলেও তিনি সবসময় সাধারণ ভাবে জীবন যাপনে অভ্যস্ত। গরীব, দুঃখী ও অসহায় মানুষ তার পরম বন্ধু। তিনি তাদেরকে স্বল্প বা বিনা দর্শনীতে আইনী সহায়তা প্রদান করে থাকেন।

অত্যন্ত পরোপকারী জনাব লিপু এলাকায় সব সময় গরীব, দুঃখী ও অসহায় মানুষদের আর্থিক সাহায্য সহযোগিতা করে থাকেন। আজীবন তিনি মানুষের কল্যাণ করতে চান। আজীবন মানুষের ভালোবাসা নিয়ে বেঁচে থাকতে চান। এডঃ লিপু আসন্ন আনোয়ারা উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ হতে মনোনয়ন প্রত্যাশী। তিনি জনপ্রতিনিধি হয়ে জনগণের সেবা করতে চান। তাছাড়াও তিনি মাননীয় ভূমি মন্ত্রী জননেতো সাইফুজ্জামান চৌধূরী জাবেদ এমপি’র একজন বিশ্বস্ত ও ঘনিষ্ট জন হিসেবে পরিচিত।

রাজনীতিবীদ সালাহউদ্দিন লিপু চিন্তা চেতনায় একজন উদার মনের মানুষ। তিনি একজন আদর্শবান ব্যক্তি। কোন লোভ লালসা তাকে তার আদর্শ থেকে বিচ্যূতি করতে পারেনি। তিনি আদর্শিক চেতনার পথিকৃত। অত্যন্ত বিনয়ী ও মিষ্টভাষী। তিনি সহজে মানুষকে আপন করে নিতে পারেন। তিনি অত্যন্ত বুদ্ধিমান, মেধাবী ও বিচক্ষণ একজন ব্যক্তি।

দুঃসময়ের কান্ডারী এডঃ লিপুর ১৯৮৩ সালে ছাত্রলীগের রাজনীতির মাধ্যমে রাজনীতিতে পদার্পন ঘটে। স্বৈরচার এরশাদ-খালেদা ও সেনা সমর্থিত ফকরুদ্দিন সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে তিনি অগ্রণী ভূমিকা পালন করি। তিনি ১৯৯৫ সালে ১৫ ফেব্র“য়ারির একতরফা নির্বাচন প্রতিহত করেন। তৎকালে আন্দোলন করতে গিয়ে তাকে অনেক নির্যাতন সহ্য করতে হয়েছে। ২০১৩-১৪ সালে দেশব্যাপী জামায়াত-বিএনপির নৈরাজ্য ও সন্ত্রাসের বির“দ্ধে তিনি দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলেন। বঙ্গবন্ধু হত্যাকারীদের এবং যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও রায় কার্যকর করার দাবীতে মিছিল সমাবেশ করেন। এখনো তিনি আওয়ামী রাজনীতিতে সক্রিয় আছেন। সংগঠনের নেতৃত্ব দেয়ার মতো তার সাংগঠনিক ক্ষমতা ও যোগ্যতা আছে। র্নিলোভ ও ত্যাগী এডঃ লিপু কখনো পদ পদবীর জন্য লালায়িত ছিলেন না। ভবিষ্যতেও বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অবিচল থেকে তিনি রাজনীতিতে সক্রিয় থাকতে চান। তিনি তার অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌছাঁতে বদ্ধপরিকর।

বর্ণাঢ়্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারি এডঃ লিপু ১৯৮৬-৮৭ সালে চট্টগ্রাম সরকারি সিটি কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সাধারণ সম্পাদক, দলকে সংগঠিত করার লক্ষ্যে ১৯৯২ সালে আনোয়ারা বটতলী শেখ রাসেল স্মৃতি সংসদ প্রতিষ্ঠা করে সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। যে সংগঠনকে দলের তৎকালীন দুঃসময়ের কর্মী সৃষ্ঠি ও আন্দোলনের সুতিকাগার হিসেবে বলা হতো। সে দুঃসময়ে দলকে সংগঠিত করে এবং হাজার হাজার কর্মী সৃষ্টি করেন। ১৯৯৩-৯৬ সালে আইন কলেজ ছাত্রলীগের যুগ্ম সস্পাদক, ১৯৯৪-৯৫ সালে চট্টগ্রাম আইন কলেজ ছাত্র-সংসদের অর্থ সম্পাদক, ২০০৩ সালে চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবি সমিতিতে নির্বাহী সদস্য, ২০০৫ সালে চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবি সমিতির পাঠাগার সম্পাদক নির্বাচিত হন। ২০০৯-১৪ সালে প্রশাসনিক ট্রাইবুন্যাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের পি,পি, ২০১২-১৬ সালে দুই মেয়াদে বটতলী শাহ্ মোহছেন আউলিয়া উ”চ বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি, বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবি পরিষদ, চট্টগ্রামের সদস্য, ২০১৪ সালে আনোয়ারা আইনজীবি কল্যাণ পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব নিষ্ঠা ও সততার সাথে পালন করেন। ২০০৯ সালের ২২ জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত আনোয়ারা উপজেলা নির্বাচনে “ভাইস-চেয়ারম্যান” পদে প্রতিদ্বন্দিতা করেন, কিš‘ জনপ্রিয়তা থাকা সত্বেও দলীয় অভ্যন্তরীন কারণে তাকে পরাজয় বরন করতে হয়।

প্রাজ্ঞ ও কর্মবীর এড. লিপু বর্তমানে এয়াকুব-ছালেহ ফাউন্ডেশন, চট্টগ্রামের সভাপতি, নিজেদের প্রতিষ্ঠিত বটতলী শাহ্ মোহছেন আউলিয়া এয়াকুবিয়া দাখিল মাদরাসা পরিচালনা পরিষদের সভাপতি, জল-ভূমি-পরিবেশ রক্ষা পরিষদের সভাপতি, আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামীলীগের এডহক কমিটির সদস্য, বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবি পরিষদের সদস্য। ইউ,সি,বি ব্যাংকের আইন উপদেষ্ঠা, অন লাইন পোর্টাল সিটিনিউজবিডিডটকম ও পাক্ষিক ম্যাগাজিন আজকাল এর আইন উপদেষ্ঠা, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি, চট্টগ্রাম জেলার আজীবন সদস্য সহ বিভিন্ন সংগঠনের সাথে জড়িত আছেন। তার এ পর্যন্ত প্রায় শতাধিক প্রবন্ধ বিভিন্ন পত্রিকা, ম্যাগাজিন ও সাময়িকীতে প্রকাশিত হয়েছে। গুণী ব্যক্তি জনাব লিপু শিক্ষা, সমাজসেবা ও রাজনীতিতে অনবদ্য অবদানের জন্য বিভিন্ন পুরষ্কারে ভূষিত হন।

এ বিভাগের আরও খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.