আমিরাতের আদালতে হিন্দি ভাষাকে স্বীকৃতি

0

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ সংযুক্ত আরব আমিরাত আদালতের ভাষা হিসেবে ভারতীয় ভাষা হিন্দিকে স্বীকৃতি দিয়েছেন। এটা সংযুক্ত আরব আমিরাতের আদালত তৃতীয় ভাষা হিসেবে হিন্দিকে স্বীকৃতি দিয়েছে। এর ফলে এখন থেকে দেশটিতে থাকা ভারতীয় প্রবাসীরা আদালতে হিন্দি ভাষার ব্যবহার করতে পারবেন। এর ফলে আমিরাতে বসবাসরত বাঙালি, নেপালি, শ্রীলংকান ও পাকিস্তানীরাও (যারা এ ভাষা বোঝেন) এ ভাষা ব্যবহার করতে পারবেন। এতদিন শুধুমাত্র আরবি ও ইংরেজিতে আইনি প্রক্রিয়া চলত দেশটিতে।

আবু ধাবি বিচার বিভাগের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আদালতের ভাষা হিসেবে হিন্দিকে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে বিদেশি শ্রমিকরা উপকৃত হবেন। আরবি ও ইংরেজিতে দখল না থাকলেও হিন্দিতে নিজেদের দাবি-দাওয়া লিখিত ও মৌখিকভাবে জানাতে পারবেন তারা। আদালতে ব্যবহৃত বিভিন্ন ধরনের নথিপত্র হিন্দিতে ছাপানো হবে।

বিচার বিভাগের ওয়েবসাইটেরও একটি হিন্দি সংস্করণ আনা হচ্ছে। তাতে জটিল আইনি ভাষাগুলো হিন্দিতে অনুবাদ করা থাকবে। যাতে প্রয়োজন অনুযায়ী সেখানকার আইন-কানুন রপ্ত করে নিতে পারেন বিদেশি নাগরিকরা। মামলা সংক্রান্ত ফাইলপত্র এবং আদালতের রায়েরও হিন্দি কপি হাতে পাবেন তারা।

আবু ধাবির বিচার বিভাগের চেয়ারম্যান বিচার ব্যবস্থায় স্বচ্ছতা আনতে দেশটির ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির উপদেষ্টা সংক্রান্ত দফতরের প্রধান শেখ মনসুর বিন জায়েদ আল নাহিয়ানের নির্দেশে হিন্দিকে আদালতে তৃতীয় ভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিচার বিভাগের আন্ডার সেক্রেটারি ইউসেফ সাঈদ আল আবরি।

আবু ধাবির জনসংখ্যা প্রায় ৫০ লাখ, যার দুই-তৃতীয়াংশই বিদেশি। এর মধ্যে ভারতীয় বংশোদ্ভূত প্রবাসী রয়েছে প্রায় ২৬ লাখ। হিন্দিকে স্বীকৃতি দেয়ার সিদ্ধান্ত ভারত এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে আশাপ্রকাশ করেছেন কূটনীতিকরা।

এ বিভাগের আরও খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.