একটি কিডনির জন্য নাসিম শিকদারের আকুতি

0

সিটি নিউজ ডেস্ক,চট্টগ্রাম : মোহাম্মদ নাসিম উদ্দীন শিকদারের বয়স ৪৫। মাসে মাসে ডায়ালাইসিস করতে হয়। কিডনি ডায়ালাইসিসের মাধ্যমে তার শরীরের রক্ত পরিশোধন করা হয় এবং এর মাধ্যমে সে বেঁচে আছেন।

কিন্তু এভাবে বেঁচে থাকাটা নাসিম মেম্বারের জন্য কাম্য নয়। তার চলাফেরা সীমিত, সে কাজ করতে পারেনা,দূরে কোথাও ঘুরতে যেতে পারে না। এমনকি খাওয়া দাওয়াও খুব সীমিত। সবসময় ক্লান্ত অনুভব করেন। তিনি “আমি এগুলো নিয়ে ভাবতে চাইনা,আমি বেঁচে আছি ঠিকই। কিন্তু জীবন আমার কাছে উপভোগ্য নয়। আমার মনে হয় কেউ যদি আমার জীবন দিত” বলেছিলেন নাসিম মেম্বার।

নাসিম মেম্বারের দু’টো কিডনি অকেজো। একটি নতুন কিডনি পাওয়ার আশায় তিনি এখন অপেক্ষা করছেন। পরিবারের অন্য সদস্যদের সাথে তার রক্তের গ্রুুপ মিলছে না। ফলে তাদের কেউ নাসিম মেম্বারকে কিডনি দান করতে পারবেনা। নাসিম মেম্বার বলছিলেন, “আমি আমার মা,ভাই,বোন,বউ বাচ্চা নিয়ে জীবনটা উপভোগ করতে চাই”।

মুহাম্মদ নাসিম উদ্দীন শিকদার (৪৫) চন্দনাইশ উপজেলার বরকল ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান মেম্বার (সদস্য)। তিনি বরকল ৬ নং ওয়ার্ড শিকদার বাড়ীস্থ মরহুম হাজী মুহাম্মদ নুরুল ইসলামের ১ম পুত্র। বর্তমানে নাসিম মেম্বারের পরিবারে তার মা,স্ত্রী,তিন ছেলে,এক মেয়ে, চার ভাই, তিন বোনসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রয়েছে। তিনি প্রায় দীর্ঘ পাঁচ বছর যাবৎ বরকল ইউপি ৬ নং ওয়ার্ডের মেম্বার হিসেবে জনপ্রতিনিধিত্ব করছেন।

এলাকায় তার যথেষ্ট জনপ্রিয়তা ও গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে। সাধারণ জনগণের সুখে দু:খে সবসময় পাশে থাকেন বলে তার এলাকায় যথেষ্ট সুনাম রয়েছে। তিনি কিছুদিন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়ার পর ভারতের ভেল্লোর-৪ খ্রিস্টান মেডিকেল হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা নেন। বিশেষঙ্গ ডাক্তার তাকে তার দু’টো কিডনি থেকে একটি কিডনি হলেও প্রতিস্থাপনের পরামর্শ দেন। উল্লেখ্য যে, তার রক্তের গ্রুুপ “ও”(o+) পজেটিভ।

‘ও’ পজেটিভ রক্তের গ্রুপের একটি কিডনি নাসিম মেম্বার বাঁচার জন্য খুব জরুরী। তাই মানবিক কারণে যদি কেউ ওপজেটিভ রক্তের একটি কিডনি তাকে দান করার জন্য আগ্রহি হলে (যেকোন শর্তে) তাহলে তার ভাই মোহাম্মদ জানে আলম শিকদার ০১৮১৩-৩১৭৫০৭ অথবা জিএম শাহাদত হোছাইন মানিক ০১৮১৩-৯৫৪৩৬৪ এর সাথে যোগাযোগ করার জন্য মুহাম্মদ নাসিম উদ্দীন শিকদারের পরিবারের পক্ষ থেকে বিনীত অনুরোধ জানিয়েছেন।

এ বিভাগের আরও খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.