এদেশে কোনো ধর্মকে আলাদা চোখে দেখার সুযোগ নেই

0

সিটি নিউজ,চট্টগ্রাম :  সমাজ থেকে অশুভ শক্তিকে সম্পূর্ণ নির্মূল করা সম্ভব নয়। তবে শুভ শক্তির সচেতনতার মধ্য দিয়ে অশুভ শক্তিকে প্রতিরোধ করা সম্ভব। বর্তমান সরকার সংখ্যালঘুদের অধিকার রক্ষায় সচেষ্ট। তাই বর্তমান সরকার সংখ্যালঘু নির্যাতন রোধে কাজ করে যাচ্ছে। শুধু তাই নয় মন্দির, গীর্জা, প্যাগোডায় হামলার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলা বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। সমাজে দুষ্কৃতিকারীর সংখ্যা হাতেগোনা থাকে। তবে সুযোগ সন্ধানীরা নিজেদের স্বার্থে সমাজে সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতন করে, সংখ্যালঘুদের জমি দখল করে নেয়, হুমকি দেয়, বর্তমান সরকার সংখ্যালঘুদের উপর অত্যাচারের বিরুদ্ধে যথার্থ ব্যবস্থা নিয়েছে।

তিনি আরো বলেন, এদেশে কোনো ধর্মকে আলাদা চোখে দেখার সুযোগ নেই। সবাইকে এক মন-মানসিকতা নিয়ে দেশের উন্নয়নে কাজ করতে হবে। ২০০১ সালের পর এদেশে মানুষকে যে দূর্ভোগ পোহাতে হয়েছে বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর তার অবসান হয়েছে। হিন্দু-মুসলিম-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান সহ সব ধর্মের মানুষকে নিয়ে দেশে উন্নয়নের কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। সমাজের ভালো মানুষরা সংগঠিত হলে অশুভ শক্তি আর অপরাধ করার সুযোগ পাবে না। সেজন্য সবাইকে সংঘবদ্ধ হয়ে অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

আজ ১৪ জুলাই শনিবার নন্দনকানন শ্রীশ্রী রাধামাধব মন্দির ও গৌর নিতাই আশ্রম সম্মুখে ডি.সি. হিল প্রাঙ্গণে আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ (ইস্কন) চট্টগ্রাম আয়োজিত বিশাল ২১তম কেন্দ্রিয় রথযাত্রার ধর্মীয় মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দিন উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

রথযাত্রায় মহান আশির্বাদক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইসকনের হেডকোয়ার্টার ভারতের মায়াপুর হতে আগত ইস্কনের অন্যতম সন্যাসী শ্রীমৎ অমিয় বিলাস স্বামী মহারাজ, ইস্কন বাংলাদেশের সিনিয়র সহসভাপতি শ্রীমৎ ভক্তিপ্রিয়ম্ গদাধর গোস্বামী মহারাজ। ভারতের মায়াপুর সংকীর্তন ও প্রচার বিভাগের পরিচালক শ্রীপাদ বেণুধারী দাস ব্রহ্মচারী, ইস্কন মায়াপুর মন্দিরের জেনারেল ম্যানেজার জগৎগুরু জয়দেব দাস ব্রহ্মচারী, কৃষ্ঞ বিজয় দাস,।

নন্দনকানন ইস্কন মন্দিরের সভাপতি পন্ডিত গদাধর দাস ব্রহ্মচারী’র সভাপতিত্বে ও সুমন চৌধুরী’র সঞ্চালনায় উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সহকারী ভারতীয় হাইকমিশনার অনিন্দ্য ব্যানার্জী। তিনি বলেন,ইসকন প্রতিষ্ঠাতা আচার্য শ্রীল অভয়চরণারবিন্দ ভক্তিবেদান্ত স্বামী প্রভুপাদ এই রথযাত্রার বিশ্বায়ন এক চমৎকার ভূমিকা পালন করেন।ইস্কনের বিভিন্ন কার্যক্রম সারাবিশ্বে প্রশংসিত আমি এতে গর্ববোধ করি। নন্দনকানন ইসকন মন্দিরের সাধারণ সম্পাদক তারণ নিত্যানন্দ দাস ব্রহ্মচারী স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম ইস্কনের বিভাগীয় রিজিওনাল সেক্রেটারী চিন্ময়কৃষ্ণ দাস ব্রহ্মচারী।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পুলিশ কমিশনার মাহাবুবর রহমান, পুন্ডরিক বিদ্যানিধি স্মৃতি সংসদের সভাপতি প্রফুল্ল রঞ্জন সিংহ, জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদের কেন্দ্রিয় সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট চন্দন তালুকদার, চট্টগ্রাম মহানগর হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নিতাই প্রসাদ ঘোষ, স্থানীয় সরকার বিভাগের পরিচালক দীপক চক্রবর্ত্তী, বাংলাদেশ হিন্দু ফাউন্ডেশনের প্রাক্তন চেয়ারম্যান দিলীপ মজুমদার, জন্মাষ্টমী পরিষদের কেন্দ্রিয় সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট তপন কান্তি দাশ, কোতোয়ালী থানার ওসি মো: মহসীন, কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, মহিলা কাউন্সিলর নিলু নাগ, শ্রী শচীনন্দন গোস্বামী, প্রকৌশলী আশুতোষ দাশ, বিদ্যালাল শীল, মহানগর পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি অরবিন্দ পাল অরুণ, শিক্ষাবিদ অধ্যাপক বনগোপাল চৌধুরী, ডা: মিলন দে। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ইস্কন মোহরা মন্দির অধ্যক্ষ সর্বমঙ্গল গৌর দাস ব্রহ্মচারী, নন্দনকানন ইস্কন মন্দিরের অকিঞ্চন গৌর দাস ব্রহ্মচারী, যুগ্ম সম্পাদক মুকুন্দ ভক্তি দাস ব্রহ্মচারী,বলরাম করুনা দাস, সুবল সখা দাস ব্রহ্মচারী, শেষরুপ দাস ব্রহ্মচারী, অপূর্ব মনোহর দাস ব্রহ্মচারী,বলরাম শ্যাম দাস, সত্যতীর্থ দাস, কিশোর সরকার প্রমুখ।

মহাশোভাযাত্রা নন্দনকানস্থ শ্রী শ্রী রাধামাধব মন্দির সম্মুখে ডিসি হিল প্রাঙ্গন থেকে শুরু হয়ে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে নন্দনকানন গৌর নিতাই আশ্রম এসে শেষ হয়। মহাশোভাযাত্রায় চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলা থেকে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে হাজার হাজার নরনারীসহ কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষার্থীবৃন্দ ব্যানার, প্ল¬্যাকার্ড, ফেস্টুন, পৌরাণিক সাজ ও বাদ্যযন্ত্র নিয়ে যোগদান করেন। আগামী ১৫ জুলাই থেকে ৭ দিনব্যাপী জে. এম সেন হলে ভাগবদ সপ্তাহ অনুষ্টিত হবে।উল্লেখ্য যে ২২জুলাই উল্টো রথযাত্রা নন্দনকানন গৌর নিতাই আশ্রম হতে শুরু করে উল্টো পথে নন্দনকানন শ্রীশ্রী রাধামাধব মন্দিরে এসে শেষ হবে।

এ বিভাগের আরও খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.