জ্ঞান অর্জনের সড়কের নাম ইন্টারনেট-টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী

0

সিটি নিউজ,চট্টগ্রাম : ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, নতুন প্রজন্মকে কম্পিউটারে অশিক্ষিত রেখে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া সম্ভব নয়। জ্ঞান অর্জনের জন্য দরকার হবে ডিজিটাল ডিভাইস ও ইন্টারনেট সংযোগ। ইন্টারনেটের সাথে থাকলে পৃথিবীর যেকোন প্রান্তে যাওয়া সম্ভব। জ্ঞান অর্জনের সড়কের নাম ইন্টারনেট।

টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী আজ চট্টগ্রাম নাসিরাবাদ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে সেসিপ আয়োজিত ডিজিটাল লার্নিং মেলার উদ্বোধনী দিনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব বলেন।

ই-লার্নিং এ সময় সাশ্রয় হয় উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীদের ই-লার্নিং এর আওতায় নিয়ে আসার জন্য সরকার বদ্ধপরিকর। ই-লার্নিং এ উপযুক্ত শিক্ষা দিয়ে শিক্ষার্থীদের আন্তর্জাতিক মানের প্রযুুক্তিবিদ গড়ে তুলতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, ছাত্র-ছাত্রীদের দিকে তাকালে আমি আগামী বাংলাদেশকে দেখি। সুতরাং নতুন প্রজন্মের জন্য বাংলাদেশে অনুকুল পরিবেশ তৈরি করা আমাদের দায়িত্ব।

মন্ত্রী আরো বলেন, ইন্টারনেট পৃথিবীর বড় লাইব্রেরি। এ লাইব্রেরি থেকে যতটুকু প্রয়োজন নেবো, আর যা প্রয়োজন না তা বাদ দেবো। আগামী ৬ মাসের মধ্যে ইন্টারনেটে বাজে কোন জিনিস থাকবে না এ ব্যবস্থা আমি করবো। ইন্টারনেট ব্যবহারে কারো বাধা নিষেধ থাকবে না। শিক্ষার জন্য বই খাতা, স্কুল ব্যাগ কিছুই লাগবে না। পড়ালেখা হবে ডিজিটাল ডিভাইজের মাধ্যমে। আজকের পৃথিবী পাঠ্যপুস্তক নির্ভর নয়, তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর। পাঠ্যপুস্তকের বাইরেও জ্ঞান অর্জন করতে হবে।

শিক্ষা ব্যবস্থায় ডিজিটালাইজেশন করতে হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাল্টিমিডিয়া ক্লাস এবং ডিজিটাল ল্যাব থাকবে।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ও বাংলাদেশ হাইটেক পার্কের জমি হস্তান্তরের এমওইউ চুক্তি স্বাক্ষর এবং আগ্রাবাদে সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন মন্ত্রী। এসময় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক ও চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

এ বিভাগের আরও খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.