টেকনাফে বদির তিন ভাইসহ ১০২ মাদক ব্যবসায়ীর আত্মসমর্পণ

0

সিটি নিউজ ডেস্ক : নানা জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে উখিয়া ও টেকনাফ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগ নেতা আবদুর রহমান বদির তিন ভাইসহ ১০২ মাদক ব্যবসায়ী আত্মসমর্পণ করেছেন। শনিবার দুপুরে টেকনাফ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে মাঠে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে তারা আত্মসমর্পণ করেন।

আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মো. আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি, আইজিপি ড. মো. জাবেদ পাটোয়ারী, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিনসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং কক্সবাজার ৪টি আসনের সংসদ সদস্য।

আত্মসমর্পণকারীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন- সাবেক সংসদ সদস্য আওয়ামী লীগ নেতা আবদুর রহমান বদির ভাই- মাদক ব্যবসায়ী আবদুর শুক্কুর, আমিনুর রহমান, শফিকুল ইসলাম, বদির ভাগিনা মো. সাহেদ রহমান নিপু, বিয়াই সাহেদ কামাল ও খালাতো ভাই মন মন সেন।

এ সময় মাদক ব্যবসায়ীরা তিন লাখ ৫০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ৩০টি দেশীয় এলজি ও ৭০টি তাজা কার্তুজ জমা দেন। আত্মসমর্পণকারীরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত ও চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ী। তারা স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে আত্মসমর্পণ করেছেন।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ‘সেফহোম’ থেকে শীর্ষ ইয়াবাকারবারিদের কক্সবাজারের টেকনাফে আত্মসমর্পণ মঞ্চে আনা হয়। মঞ্চের কাছে একটি দোতলা ভবনে তাদের রাখা হয়। আত্মসমর্পণকারীদের দেখতে তাদের স্বজন ও এলাকার হাজারো মানুষ ভিড় জমান। তালিকাভুক্ত কয়েকজন ইয়াবা কারবারিকেও অনুষ্ঠানস্থলে দর্শক হিসেবে কাছে দেখা গেছে।

পুলিশ সূত্র জানিয়েছে, আত্মসমর্পণকারী ১০২ জন ইয়াবা ব্যবসায়ীর মধ্যে অন্তত ৩৫ জন গডফাদার রয়েছেন। আত্মসমর্পণকৃতদের বিরুদ্ধে ইয়াবা ও অস্ত্র উদ্ধারের মামলা হবে।

এদিকে গেল বছরের ৪ মে থেকে সরকার মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে বিভিন্ন বাহিনী ও সংস্থা স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি কিছু পরিকল্পনা নেয়। পাশাপাশি দেশজুড়ে চলে বন্দুকযুদ্ধ।

এতে কয়েকশ’ইয়াবা ব্যবসায়ি নিহত হয়। এর মধ্যে কক্সবাজার জেলায় মারা গেছে ৪৪ জন।গত বছরের ডিসেম্বর থেকে মাদক নির্মূলে ইয়াবা কারবারিদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসা ও পুনর্বাসনে সরকার উদ্যোগ নেবে এমন ইঙ্গিত আসে সরকারের শীর্ষ পর্যায় থেকে। জানুয়ারির মাঝামাঝি থেকে আত্মসমর্পণের জন্য ইয়াবা কারবারিরা কক্সবাজারে সেফহোমে জড়ো হয়।

এ বিভাগের আরও খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.