নিন্ম মধ্যবিত্তের ৬৫ ভাগ শিক্ষার্থী চসিক স্কুলে অধ্যয়ন করছে

0

কারেন্ট টাইমসঃ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, নগরীর নিন্ম ও মধ্যম শ্রেনীর ৬৫ ভাগ শিক্ষার্থী চসিক পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহে অধ্যয়ন করছে। চসিক দেড়শত বছর আগে থেকেই নগরীর শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়। মরহুম নুর আহমদ চেয়ারম্যান অবৈতনিক প্রাথমিক শিক্ষা কার্যক্রমের মাধ্যমে এই কার্যক্রম শুরু করার পর আজপর্যন্ত চলমান রয়েছে। বর্তমানে চসিকের ৯০ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ৬৫ হাজার শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করছে। এমনকি শিক্ষার্থী ঝড়ে পড়া রোধে চসিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহে ৮ হাজারেরও অধিক শিক্ষার্থীকে বিনা বেতনে অধ্যয়ন করার সুযোগ দিচ্ছে। চসিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের শিক্ষার মান উন্নয়নে সংশ্লিষ্টদের নিকট ডিজিটাল ল্যাব, মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম সহ আধুনিক সরঞ্জামের সহযোগিতা চাইলেন মেয়র।

আজ মঙ্গলবার (১২ মা্র্চ) বিকেলে কর্পোরেশনের কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত ৬টি স্কুল ও কলেজের পরিচালনা কমিটির এক সভায় সভাপতির বক্তব্যে মেয়র একথা বলেন। সভায় সংশ্লিস্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ এবং স্কুল ও কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন। যে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর সভা অনুষ্ঠিত হয় সেগুলো হলো পতেঙ্গা সিটি কর্পোরেশন মহিলা কলেজ, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন প্রিমিয়ার কলেজ, কাট্টলী সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ, ডা. জাকির হোসেন সি/ক হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, পূর্ব বাকলিয়া সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ, সরাইপাড়া সিটি কর্পোরেশন কলেজ।

এসময় প্যানেল মেয়র প্রফেসর ড. নিছার উদ্দীন আহমদ মঞ্জু, কাউন্সিলর জয়নাল আবদীন, আলহাজ্ব হাসান মুরাদ বিপ্লব, চসিক প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা সুমন বড়য়া, পূর্ব বাকলিয়া সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অভিভাবক প্রতিনিথি আলহাজ্ব মোহাম্মদ হারন উর রশিদ, আলহাজ্ব আবদুল করিম, কাজী শাহীনা সুলতানা, শিক্ষক প্রতিনিধি চিত্রা চন্দ, মোহাম্মদ আছেফুর রহমান ফারুকী, অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আবু তালেব, পতেঙ্গা সিটি কর্পোরেশন মহিলা কলেজের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য ইঞ্জি. আ ফ ম ইসহাক , জাগির আহগম, হাজী মোহাম্মদ জয়নাল আবেদিন, আব্দুর রহিম, ফজল করিম, শিক্ষক প্রতিনিধি সৈকত চৌধুরী, বিশ্ব নাথ নাথ, সদস্য সচিব ইসমত আরা, সরাইপাড়া সিটি কর্পোরেশন কলেজের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য সাবের আহম্মদ,

দাতা সদস্য নুরুল আমীন, হিতৈষী সদস্য মো. নুরুল ইসলাম, বিদ্যোৎসাহী সদস্য ডা. মো. শহীদ উল্লাহ কায়সার, রিয়াদ মুজাহিদুল ইসলাম, অভিভাবক প্রতিনিধি এ এ এম কিবরিয়া, মুহাম্মদ রহিম উল্লাহ আজাদ, নাছিমা বেগম, শিক্ষক প্রতিনিধি সাহিদা বেগম, কাজী মীর হোসেন, মুহাম্মদ আলী, অধ্যক্ষ ও সদস্য সচিব রওশন আখতার, ডা. জাকির হোসেন সিটি কর্পোরেশন হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য ডা.্ এ কে এম ফজলুল হক সিদ্দিকী, মাকসুদ আহাম্মদ সর্দার, আবদুল করিম, নুর উদ্দীন, আবু ইউছুপ, ডা. খুরশিদ জাহান বেগম, ডা. খোরশেদ আলম চৌধুরী, সদস্য সচিব অধ্যক্ষ ডা. মো. নুরুল আমিন, চসিক প্রিমিয়ার কলেজের নির্বাহী কমিটির সদস্য সারওয়ার মোরশেদ কচি, আলহাজ্ব নুরুল বশর মিয়া, অধ্যক্ষ মো. আবু তৈয়ব চৌধুরী, কাট্টলী সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য মো. আবুল কাশেম, অভিভাবক প্রতিনিধি হাবিবুর রহমান চৌধুরী, শিক্ষক প্রতিনিধি কোহিনুর আকতার, লিটন কান্তি দেব উপস্থিত ছিলেন

সিটি মেয়র এই সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো শিক্ষক স্বল্পতা,প্রয়োজনীয় অবকাঠামোর অভাব ও বিভিন্ন সমস্যার কথা মনযোগ দিয়ে শুনেন। তিনি অচিরেই এই সমস্ত সমস্যা নিরসনের আশ্বাস দেন। মেয়র আরো বলেন শিক্ষা অতীত সংস্কৃতির বাহক, বর্তমান সভ্যতার পৃষ্ঠপোষক এবং ভবিষ্যৎ প্র্রগতির ধারক। মানুষের ভিতরে যে সুপ্ত প্রতিভা, সম্ভাবনা লুকিয়ে থাকে তা শক্তিতে জাগ্রত করনের মাধ্যম হচ্ছে শিক্ষা। তিনি বলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে শিক্ষা কার্যক্রম একটি ঐতিহাসিক উদ্যোগ। বহুকাল পূর্ব থেকে এ শিক্ষা ব্যবস্থা চলমান ছিল। বর্তমানে চসিক ৯০ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছে। এই খাতে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন প্রায় ৪৩ কোটি টাকা ভূর্তকী দিচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ বিগত সভার কার্যবিববরণী মেয়র বরাবরে উপস্থাপন করলে তা পরিচালনা পর্ষদের সকল সদস্যের সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। সভায় আগামী ১৭ই মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে চসিকের উদ্যোগে শিশু সমাবেশ এবং ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের সিদ্ধান্তও গৃহিত হয়।

 

এ বিভাগের আরও খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.