প্যারিসের নটর ডেম গির্জার আগুন নিয়ন্ত্রণে

0

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের বিশ্বখ্যাত নটর ডেম ক্যাথেড্রালের ভয়াবহ আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে।কিন্তু তার আগেই পুড়ে শেষ ২শ বছর ধরে নির্মিত মধ্যযুগীয় নটর ডেম ক্যাথেড্রাল। এটা তৈরি করতে সময় লেগেছিল প্রায় ২শ’ বছর। দ্বাদশ ও ত্রয়োদশ শতক ধরে ক্যাথোলিকদের এই গির্জাটি নির্মাণ করা হয়। তবে ভয়াবহ আগুনে পুড়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী নটর ডেম ক্যাথেড্রাল আবার নির্মাণ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাঁখো

ফায়ার সার্ভিসের বরাতে স্থানীয় সময় রাত পৌনে ৩টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার খবর দিয়েছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ান।দমকল বাহিনীর এক মুখপাত্র জানান, ক্যাথেড্রালের আগুন এখন সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। একাংশের আগুন একেবারেই নেভানো হয়েছে। বাকি যে অংশে এখনও কিছু জ্বলছে, অচিরেই তা নেভানো সম্ভব হবে।

সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে নটর ডেম ক্যাথেড্রালে আগুন লাগে। এতে ইউনেস্কো ঘোষিত ৮৫০ বছরের পুরনো বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ গির্জাটির সুউচ্চ চূড়াসহ ছাদ ধসে পড়ে। কিন্তু, গোথিক স্থাপত্য শৈলীর নটর ডেম ক্যাথেড্রালের মূল কাঠামো এবং দুটি বেল টাওয়ার আগুন গ্রাস করতে পারেনি বলে খবর দিয়েছে আরেক ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি।

ফায়ার সার্ভিস বিগ্রেডের প্রধান জেন-ক্লাউড গ্যালেট বলেছেন, নটর ডেম ক্যাথেড্রালের মূল কাঠামো রক্ষা পেয়েছে এবং অক্ষত রয়েছে। ৫ শতাধিক দমকলকর্মী এই আগুন নেভানোর কাজে অংশ নেন। আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার পর তারা গির্জাটির ভেতরে প্রবেশ করেছেন। আগুন নেভাতে গিয়ে এক দমকল কর্মী গুরুতর আহত হয়েছেন বলে জানানো হয়েছে।

ফ্যান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাকে ‘ভয়ঙ্কর ট্র্যাজেডি’ বলে আখ্যায়িত করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘এই ঘটনায় আমি দুঃখ ভারাক্রান্ত। আমাদের সবার যেন একটা অংশ জ্বলছে।’

ফরাসি প্রেসিডেন্টের সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশে টেলিভিশনে ভাষণ দেয়ার কথা থাকলেও সেটি বাতিল করা হয়। পরে সন্ধ্যায় জ্বলন্ত নটর ডেম ক্যাথেড্রাল পরিদর্শন করেন তিনি। ইমানুয়েল ম্যাখোঁ জাতির কাছে এই ক্যাথেড্রাল পুনর্নির্মাণের প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেছেন। প্রয়োজনে আন্তর্জাতিকভাবে তহবিল সংগ্রহের কথাও জানিয়েছেন।

তার আহ্বানেই সাড়া দিয়ে অনলাইনে অর্থ সহায়তার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে ফ্রান্সের ধনকুবের ও বিখ্যাত কেরিং গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং সিইও ফ্রানকোয়িস-হেনরি পিনাট বিবৃতি দিয়ে নটর ডেম ক্যাথেড্রাল পুনর্নির্মাণে ১০০ মিলিয়ন ইউরো সহায়তার ঘোষণা দিয়েছেন।

এখন পর্যন্ত আগুনের কারণ জানা যায়নি। তবে, দমকল কর্মীরা ধারণা করছেন, ক্যাথেড্রালের ওপরের অংশে বেশ কিছুদিন ধরে সংস্কারকাজ চলছিল। সেখানকার কোনো ক্রটির ফলেই আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। প্যারিসের প্রসিকিউটর কার্যালয় জানিয়েছে, উন্মুক্তভাবে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে।

প্যারিসের ইল ড্য লা সিটিতে অবস্থিত ১২শ’ শতাব্দীর তৈরি নটর ডেম ক্যাথেড্রাল শহরের অন্যতম দর্শনীয় স্থান। ১২শতকে এই ক্যাথেড্রালের নির্মাণকাজ শুরু হলেও সমাপ্তিতে প্রায় ২০০ বছর লেগে যায়। ক্যাথেড্রালের খিলান ও বাইরের অংশ গোথিক শিল্প শৈলীতে তৈরি। দৈর্ঘ্য ১২৭ মিটার, প্রস্থ ৪০ মিটার ও ছাদের উচ্চতা ৩৩ মিটার।

সোমবার সন্ধ্যায় আগুন লাগার পর লেলিহান শিখা ও ধোঁয়া বহু দূর থেকে সবার নজরে আসে। পরে সেখানে হাজার হাজার প্যারিসবাসী ও পর্যটকেরা জড়ো হন। তাদের অনেকেই চোখের সামনে বিশ্ব ঐতিহ্য ধ্বংস হতে দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন।

নটর ডেম গির্জা ফের গড়ার অঙ্গীকার ম্যাঁখোর
ভয়াবহ আগুনে পুড়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী নটর ডেম ক্যাথেড্রাল আবার নির্মাণ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাঁখো।

অগ্নিকাণ্ডের পরপরই সোমবার রাতে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণ বাতিল করেন তিনি। এরপর আগুনে পুড়তে থাকায় গির্জা পরিদর্শন করে তাৎক্ষণিক ব্রিফ করেন ম্যাঁখো।

 ঐতিহ্যবাহী নটর ডেম ক্যাথেড্রাল আবার নির্মাণ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাঁখো
ঐতিহ্যবাহী নটর ডেম ক্যাথেড্রাল আবার নির্মাণ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাঁখো

সে সময়ে তিনি বলেন, ‘ভয়াবহ এই ক্ষতি এড়ানো সম্ভব ছিল। যুদ্ধটা এখনো শেষ হয়নি। পরবর্তী কয়েক ঘণ্টা আমাদের জন্য খুবই কঠিন।’ পরে গভীর দুঃখ প্রকাশ করে ফরাসি প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘এই ঘটনায় আমি দুঃখভারাক্রান্ত। নটর ডেম ক্যাথেড্রাল ফরাসি জাতির আত্মা। এটি পুড়ে যাওয়ায় পুরো ফ্রান্স মর্মাহত।’

তিনি বলেন, ‘৮৫০ বছরের পুরনো গির্জাটি ফের নির্মাণে জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে অর্থ সংগ্রহ করা হবে।’ দেশবাসীর উদ্দেশে ম্যাঁখো আরও বলেন, ‘আমরা একসঙ্গে নটর ডেম ক্যাথেড্রাল পুনর্নিমাণ করব। নিসন্দেহে ফ্রান্সের নিয়তির সঙ্গে গির্জাটি জড়িয়ে রয়েছে এবং এই বছরের মধ্যেই পুনর্নির্মাণ দৃশ্যমান হবে।’

এর আগে সোমবার স্থানীয় সময় বিকেল সাড়ে ৬টায় নটর ডেম ক্যাথেড্রালে ভয়াবহ আগুন লাগে। প্রায় সাড়ে ৮ ঘণ্টা ৫ শতাধিক দমকলকর্মী চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে। আগুনে ইউনেস্কো ঘোষিত বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ গির্জাটির সুউচ্চ চূড়াসহ ছাদ ধসে পড়ে।

তবে, দেশটির ফায়ার বিগ্রেডের প্রধান জেন-ক্লাউড গ্যালেট বলেছেন, গোথিক স্থাপত্য শৈলীর নটর ডেম ক্যাথেড্রালের মূল কাঠামো রক্ষা পেয়েছে ও অক্ষত রয়েছে। দৃষ্টিনন্দন দুটি বেল টাওয়ার আগুন গ্রাস করতে পারেনি।

এখন পর্যন্ত আগুনের কারণ জানা যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে, গির্জাটির ওপরের অংশে চলা সংস্কার কাজের কোনো ত্রুটি থেকে আগুনের সূত্রপাত। আগুনে নটর ডেম ক্যাথেড্রালের পাথরের কাঠামো পুরো ধ্বংস হয়ে গেছে।

মঙ্গলবার ভোরে ফায়ার সার্ভিসের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, আগুন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এখনো কাঠের নির্মাণ অংশে আগুন রয়েছে। সেখান থেকে যাতে ফের আগুন ছড়িয়ে না পড়ে, সে বিষয়ে দমকল বাহিনী সতর্ক রয়েছে। মধ্যযুগীয় নটর ডেম ক্যাথেড্রাল তৈরি করতে সময় লেগেছিল প্রায় ২শ’ বছর। দ্বাদশ ও ত্রয়োদশ শতক ধরে ক্যাথোলিকদের এই গির্জাটি নির্মাণ করা হয়।

নটর ডেম ক্যাথেড্রাল প্যারিসের ইল ড্য লা সিটিতে অবস্থিত। এটি শহরের অন্যতম দর্শনীয় স্থান। ক্যাথেড্রালের খিলান ও বাইরের অংশ গোথিক শিল্প শৈলীতে তৈরি। দৈর্ঘ্য ১২৭ মিটার, প্রস্থ ৪০ মিটার ও ছাদের উচ্চতা ৩৩ মিটার।

৮৫০ বছর ধরে ক্যাথেড্রাল প্যারিসে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে রয়েছে। পর্যটকদের কাছে দেশটির জাতীয় প্রতীক আইফেল টাওয়ারের সমকক্ষই ছিল গির্জাটি। প্যারিসের মেয়র অ্যানি হিদালগো জানিয়েছেন, নটর ডেম ক্যাথেড্রালের ভেতরে প্রচুর সংখ্যক শিল্পকর্ম রয়েছে। এটি একটা সত্যিকারের ট্র্যাজেডি।

বিখ্যাত ভিক্টর হুগোর ‘দ্য হাঞ্চব্যাক অব নটর ডেম’ ফরাসিদের কাছে নটর ডেম দ্য প্যারিস হিসেবে পরিচিতি এনে দিয়েছিল। এই ক্যাথেড্রালটি সর্বশেষ বড় ধরনের ক্ষতির শিকার হয়েছিল ফরাসি বিপ্লবের সময়। তবে, দুটি বিশ্বযুদ্ধের হাত থেকেই নটর ডেম ক্যাথেড্রালকে রক্ষা করা গেছে। প্রতিবছর এখানে ১ কোটি ৩০ লাখ দর্শনার্থী (১৩ মিলিয়ন) আসেন বলে জানোনো হয়েছে।

এ বিভাগের আরও খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.