বার্সেলোনা ও রিয়ালের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ

0
প্যারিস জয়ের সঙ্গে চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালেও এক পা দিয়ে রেখেছে বার্সেলোনা। কোথায় উৎসবের মেজাজে থাকবেন লিওনেল মেসিরা, তা না আজই লিগ লড়াইয়ে নেমে পড়তে হচ্ছে তাঁদের। স্পেনেও যে কঠিন লড়াই কাতালান ক্লাবটির। সেভিয়ার বিপক্ষে আগের ম্যাচে ড্র করে পয়েন্ট হারানো বার্সেলোনার ট্রেবল স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে গেলে ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে ঘরের মাঠের ম্যাচটিতে পা হড়কানো যাবে না কোনোমতেই। আর সেটা হলে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের হাতে চলে যেতে পারে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষস্থানটি। পরের ম্যাচেই মাদ্রিদের ক্লাবটি নামবে মালাগার বিপক্ষে।
ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে শিরোপার গতিপথ একরকম নিশ্চিতই হয়ে আছে। সেটি আরো সুসংহত করার লক্ষ্যে স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে কঠিন পরীক্ষায় নামতে যাচ্ছে ব্লুরা। হোসে মরিনহোর দলের চেয়ে ৭ পয়েন্ট পিছিয়ে দ্বিতীয় স্থানে থাকা আর্সেনাল আবার এফএ কাপের সেমিফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে রিডিংয়ের।
লা লিগার শেষ ম্যাচে ড্র করায় পিএসজির বিপক্ষে জয়েও স্বস্তিতে নেই বার্সেলোনা। লুই সুয়ারেসের জাদুকরী পারফরমেন্সে প্যারিস থেকে ৩-১ গোলের জয় ভুলে বরং তাদের পুরোটা নজর ভ্যালেন্সিয়া ম্যাচে। পিএসজির বিপক্ষে বার্সেলোনার জার্সিতে ৩০০ ম্যাচ পূরণ করা জেরার্দ পিকে যেমন বলছিলেন, ‘সেভিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে আমরা অনেক কিছু শিখেছি। প্যারিসে ভালো একটি ম্যাচ খেলেছি, সেটার প্রমাণ দিচ্ছে স্কোরলাইনই। এতে আমাদের আত্মবিশ্বাস বাড়লেও পা মাটিতে রাখছি। আমরা জানি এখনকার সবগুলো ম্যাচ আমাদের জন্য ফাইনাল। যে জন্য বিশ্রাম বলে কিছু নেই। প্রথম মিশন ভ্যালেন্সিয়া, এরপর ন্যু ক্যাম্পে পিএসজির বিপক্ষে লড়াই। সম্ভাব্য সবগুলো শিরোপা জিততে গেলে কঠিন এই সূচি মেনে নিতেই হবে আমাদের।’ লিগের গুরুত্বপূর্ণ সেই মিশনে প্যারিসের ম্যাচে কোমরে আঘাত পেয়ে মাঠ ছাড়া আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার খেলা নিয়ে সংশয় কাটেনি এখনো। তবে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফিরছেন দানি আলভেস।
ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে পয়েন্ট হারালে সবচেয়ে বেশি লাভ রিয়ালের। মালাগার বিপক্ষে পরের ম্যাচে জিতলেই যে ‘লস ব্লাঙ্কোরা’ ধরে ফেলবে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের। তবে মালাগার সাম্প্রতিক ফর্ম মোটেও স্বস্তিতে থাকতে দিচ্ছে না কার্লো অ্যানচেলত্তিকে। বিশেষ করে ন্যু ক্যাম্পেই যখন জাভি গার্সিয়ার দল হারিয়ে এসেছে বার্সাকে। সঙ্গে আবার চোটের কারণে গ্যারেথ বেল ও করিম বেনজিমা বৃহস্পতিবার অনুশীলন না করায় কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ পড়েছিল ইতালিয়ান কোচের। যদিও আশা করা হচ্ছে আজ ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর সঙ্গে আক্রমণভাগে শুরু থেকেই দেখা যাবে তাঁদের। নগরপ্রতিপক্ষ অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ আবার অতিথি হয়ে যাচ্ছে দেপোর্তিভো লা করুনার মাঠে।
ইংলিশ লিগে বাকি থাকা সাত ম্যাচ থেকে মাত্র ১২ পয়েন্ট যোগ করতে পারলেই ২০০৯-১০ মৌসুমের পর আবারও শিরোপা উৎসবে মাতবে চেলসি। তাদের চেয়ে এক ম্যাচ বেশি খেলা ম্যানইউ পিছিয়ে আছে ৮ পয়েন্টে। অবশ্য টানা ছয় ম্যাচ জিতে রীতিমতো অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠেছে লুই ফন হালের দল। ঘরের মাঠেও তাই কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে চেলসি। যদিও ‘রেড ডেভিলদের’ বিপক্ষে হারলেও শিরোপা দৌড়ে ঠিকই সবার ওপরে থাকবে ব্লুরা।
এদিকে চ্যাম্পিয়নস লিগের হতাশা কাটাতে বুন্দেসলিগায় আজ মাঠে নামবে বায়ার্ন মিউনিখ। জার্মান চ্যাম্পিয়নরা অতিথি হয়ে যাচ্ছে হোফেনহেইমের মাঠে। ঘরের মাঠে দুই দিন আগে বার্সেলোনার কাছে বিধ্বস্ত হওয়া পিএসজি লিগ ওয়ানের শীর্ষস্থান ধরে রাখার মিশনে নামবে নিসের মাঠে।
এ বিভাগের আরও খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.