মুশফিকের জোড়া শতকে ৫২২ রানে ইনিংস ঘোষনা

0

স্পোর্টস নিউজঃঃ মুশফিকুর রহিম প্রথম বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে দুটি দ্বিশতক করেছেন, আর বিশ্বের একমাত্র উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান হিসেবে দুটি ডাবল সেঞ্চুরি করেন তিনি।

ইনিংসের ১৫৪তম ওভারে সিকান্দার রাজার দ্রুত একটি সিঙ্গেল নিয়ে ইতিহাস গড়েন মুশফিক। ৪০৭ বলে ১৬ চার ও এক ছক্কায় ডাবল সেঞ্চুরি করেন তিনি। এর আগে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গল টেস্টে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে করেছিলেন ২০০ রান।

বাংলাদেশ ৫২২ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করলে মুশফিক ২১৯ রানে অপরাজিত থাকেন। তাঁকে যোগ্য সহায়তা দিতে গিয়ে মিরাজ হার না মানা ৬৮ রান করেন।

সিরিজের প্রথম টেস্টে জিম্বাবুয়ে বোলারদের সামনে দাঁড়াতেই পারেননি বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। সেই ম্যাচেও কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেছিলেন মুশফিক। তবে সেই টেস্ট হারের পর সিরিজের হার এড়াতে মিরপুরে ভালো খেলার চাপ ছিল বাংলাদেশের ওপর।

অথচ দ্বিতীয় টেস্টেও টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ২৬ রানে তিন উইকেট হারিয়ে বসে বাংলাদেশ। রানশূন্য আউট হন ইমরুল কায়েস এবং অভিষিক্ত মোহাম্মদ মিঠুন। দুই অঙ্কের রানের কোটা স্পর্শ না করেই আউট হন লিটন দাস। তখন চাপের মুখে দলকে টেনে তোলেন মুশফিক ও মুমিনুল হক। তবে প্রথম দিন শেষে দুজনেই শতক তুলে নিলেও মিরপুরে ২৬৬ রানের রেকর্ড জুটি ভাঙে ব্যক্তিগত ১৬১ রানে মুমিনুল বিদায় নিলে। দিনশেষে মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে ব্যক্তিগত ১১১ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন মুশফিক।

দ্বিতীয় দিনেও দাপট দেখিয়েছে বাংলাদেশ। মাহমুদউল্লাহ ৩৬ রানে ও আরিফুল ৪ রানে আউট হওয়ার পর মেহেদী হাসান মিরাজের সঙ্গে সফল জুটি গড়েন মুশফিক। এই জুটিতেই দ্বিশতক অর্জন করেন মুশফিক।

মুশফিকের প্রথম দ্বিশতকের পর ২০১৫ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্টে দ্বিশতক করেছেন তামিম। সর্বশেষ ২০১৭ সালে বাংলাদেশের হয়ে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে করেছিলেন ২১৭ রান। এবার দলের প্রয়োজনে আবারও দ্বিশতক করে আস্থার প্রতিদান দিলেন মুশফিক। দলের প্রয়োজনের সময় রান করে নিজেকে মিস্টার ডিপেন্ডেবল হিসেবে প্রমাণ করেছেন মুশফিক। তাঁর দ্বিশতকে এবং মুমিনুলের শতকে ভর করেই রানের বড় সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছে বাংলাদেশ।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত জিম্বাবুয়ে ৫.২ বলে ৭ করেছে। মাসাকাদজা ৭ চারি ০।

এ বিভাগের আরও খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.