রংপুরকে হারিয়ে ফাইনালে ঢাকা ডায়নামাইটস

0

স্পোর্টস ডেস্কঃ ঢাকা ডায়নামাইটস বিপিএল ৬ষ্ঠ আসরের ফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলল। আজ দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্সকে ২০ বল হাতে রেখে ৫ উইকেটে হারিয়ে ফাইনালের টিকিট পেয়েছে বর্তমান রানার্সআপরা।

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি সাকিব আল হাসানরা শিরোপার লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে ইমরুল কায়েসের দল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের। এর মধ্য দিয়ে বিপিএলে সর্বোচ্চ ৪বার শিরোপা তুলে ধরা মাশরাফি বিন মুর্তজাকে এবার হতাশ হতে হলো।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে রান তাড়ায় নেমে শুরুতেই ধাক্কা খায় ঢাকা ডায়নামাইটস। প্রথম ওভারেই বিধ্বংসী লঙ্কান ওপেনার উপুল থারাঙ্গাকে (৪) নাহিদুলের তালুবন্দি করেন রংপুর অধিনায়ক মাশরাফি। এরপর রনি তালুকদারকে নিয়ে ধুন্ধুমার ব্যাটিং শুরু করেন সুনিল নারাইন। দলীয় ৪১ রানে ৮ বলে ১৪ রান করা এই ক্যারিবীয় অল-রাউন্ডারকে রাইলি রুশোর তালুবন্দি করেন নাজমুল ইসলাম। ঢাকার তৃতীয় উইকেটের পতন ঘটে বেনি হাওয়েলের বলে সাকিব আল হাসান (২০ বলে ২৩) বোল্ড হলে। সবেমাত্র ঝড় তুলেছিলেন ক্যারিবিয়ান তারকা কায়রন পোলার্ড। তার ৮ বলে ‌১৪ রানের ইনিস থামান মাশরাফি।

নুরুল হাসানের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে ২৪ বলে ৩৫ রানের দারুণ ইনিংস খেলা রনি তালুকদার রান-আউট হয়ে গেলে ৯৭ রানে অর্ধেক শেষ হয় ঢাকা ডায়নামাইটসের। জমে ওঠে ম্যাচ। দ্রুতি চাপ কাটিয়ে ব্যাটে ঝড় তোলেন আন্দ্রে রাসেল। এই ক্যারিবীয় হার্ডহিটারের তাণ্ডবেই ৫ উইকেট এবং ২০ বল বল হাতে রেখে সহজেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় ঢাকা ডায়নামাইটস। নাজমুল ইসলাম অপুর করা ১৭তম ওভারে পরপর ৩টি ছক্কা মেরে দলকে জিতিয়ে দেন রাসেল।

এর আগে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৯.৪ ওভারে ১৪২ রানে অল-আউট হয় রংপুর রাইডার্স। ব্যাট হাতে দুর্দান্ত শুরু এনে দেন ক্রিস গেইল আর নাদিফ চৌধুরী। ১২ বলে ২ চার ৩ ছক্কায় ২৭ রান করা নাদিফকে শুভাগত হোম ফেরালে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে রংপুর। দ্রুত ফিরে যান ক্রিস গেইল (১৫) আর চলতি আসরে সবচেয়ে বেশি রানের মালিক রাইলি রুশো (০)। রংপুরের হাল ধরেন মোহাম্মদ মিঠুন আর রবি বোপারা।

সুনিল নারাইনের ওভারে রান-আউট থেকে বেঁচে যান মিঠুন। পরের বলেই সাকিবের হাতে ক্যাচ দেন। তবে ক্যাচ নিয়ে সংশয়ে থাকা সাকিব নিজেই থার্ড আম্পায়ার ডাকেন। টিভি রিপ্লেতে দেখা যায়, ওটা ক্যাচ ছিল না। ২৭ বলে ৩৮ রান করা মোহাম্মদ মিঠুনকে নুরুল হাসানের গ্লাভসবন্দি করে ৬৪ রানের জুটি ভাঙেন কাজী অনিক। বেনি হাওয়েলকে এলবিডাব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন সাকিব আল হাসান। রংপুর রিভিউ নিলেও সিদ্ধান্ত পরিবর্তন হয়নি।

৭ নম্বরে নামা অধিনায়ক মাশরাফি কোনো রান না করেই কাজী অনিকের দ্বিতীয় শিকার হন। নাহিদুলের (৪) স্টাম্প উপড়ে দেন রুবেল হোসেন। আন্দ্রে রাসেল তুলে নেন ফরহাদ রেজা (২) এবং শফিউলকে (০)। রুবেলের করা শেষ ওভারের চতুর্থ বলে ক্যাচ দিয়ে আউট হন ৪৩ বলে ৬ চার ১ ছক্কায় সর্বোচ্চ ৪৯ রান করা রবি বোপারা। ১৯.৪ ওভারে ১৪২ রানে অল-আউট হয় রংপুর রাইডার্স। বল হাতে ৪ ওভারে ১ মেডেনসহ ২২ রানে ৪ উইকেট নেন রুবেল হোসেন।

এ বিভাগের আরও খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.