৫লাখ টাকাসহ এক আসামী গ্রেফতার করেছে পুলিশ

0

কারেন্ট টাইমসঃ ব্যাংকে জমা দিতে যাওয়া ৫লাখ ক্যাশ টাকা খোয়া যায় জালাল আহমদ নামে এক ব্যবসায়ীর। মোবাইলে কথা বলার ফাঁকে টাকার ব্যাগ নিয়ে চম্পট দেয় নব্য এক ছিনতাইকারী। এ ব্যাপারে থানায় মামলা হলে ৬দিন পর পুলিশ টাকা সহ আসামী মো. মহিউদ্দিনকে গ্রেফতার করে।

পুলিশ জানায়, ব্যবসায়ী জালাল আহম্মদ (২৮) তার ব্যবসার টাকা জুবিলী রোড সিটি ব্যাংকে জমা দিতে যান। এরই মধ্যে হঠাৎ করে মোবাইল ফোনে কল আসলে তিনি মোবাইল নিয়ে ব্যস্ত থাকাবস্থায় মোঃ মহিউদ্দিন (২৮) কৌশলে বাদীর টাকার ব্যাগটি চুরি করে নিয়ে যায়। মোবাইলে কথা বলা শেষ করে দেখে তার টাকার ব্যাগ নেই। টাকার ব্যাগটি বাদী ব্যাংকে খোজাখুজি করে না পেয়ে বিষয়টি ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে জানায়।

পরবর্তীতে ব্যাংককের সিসিটিভির ফুটেজের মাধ্যামে দেখা যায় আসামী মো. মহিউদ্দিন বাদীর টাকার ব্যাগটি কৌশলে চুরি করে নিয়ে যায়। ইতিমধ্যে বাদী ও ব্যাংক কর্তৃপক্ষ এবং ধৃত চোরের সাথে কয়েকদফায় মোবাইল ফোনে আপোষ মীমাংসার জন্য বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেন। কিন্তু ধৃত চোর বিষয়টি প্রথমে সৎভাবে নিলেও পরবর্তীতে তিনি উল্টো বাদীকে হুমকি ধমকি দিয়া উক্ত টাকা ফেরত দিবেন না বলে জানিয়ে দেয়। পরে কোতোয়ারী থানায় অভিযোগ দিলে থানা পুলিশ সিসিটিভির ফুটেজ সংগ্রহ করতঃ মোবাইল ফোনের কললিস্ট পর্যালোচনা করে গত ১ এপ্রিল রাতে আসামীকে তার বর্তমান বাসা বানিয়া টিলা এলাকা হতে আটক করে। তার স্বীকারোক্তিতে ৫লাখ টাকা উদ্ধার করে।

পুলিশ জানায়, আসামী মো. মহিউদ্দিন একজন ক্ষুদ্র পাইকারী ব্যবসায়ী। কিন্তু সে আর্থিক দেনাগ্রস্থ হয়ে পড়ে। সে অর্থের অভাবে বিভিন্ন অপরাধ প্রক্রিয়ায় জড়িত হয়। সে রিয়াজউদ্দিন বাজারের একজন ক্ষুদ্র পাইকারী ব্যবসায়ী। ব্যবসার সুবাদে নানাজনের কাছে ঋণগ্রস্থ হলে সে মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে।

পরিবারের আত্মীয়-স্বজনসহ বা ব্যবসায়ী পার্টনারদের কাছে ঋণের টাকা পরিশোধের জন্য প্রতিনিয়ত ধর্না দিলেও কারো কাছ থেকে টাকা না পেয়ে আসামী চুরির পথ বেছে নেয়। মাঃ মহিউদ্দিন (২৮), পিতা-আব্দুল হাকিম, মাতা-নুর আয়েশা, সাং-রুপকানিয়া, হায়দার আলী বাশির বাপের বাড়ী, থানা-সাতকানিয়া, জেলা-চট্টগ্রামে তার বাড়ী। বর্তমানে-এক্স চৌধুরী, মতলব চৌধুরীর বিল্ডিং, ৬/বি,৬ষ্ঠ তলা, বানিয়া টিলা, থানা-কোতোয়ালী, জেলা-চট্টগ্রামের বাসিন্দা।

এ বিভাগের আরও খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.