বাঁশখালীতে প্রথম করোনায় আক্রান্ত ডাক্তার, ৫টি বাড়ী ও ১টি হাসপাতাল লকডাউন

0

বাঁশখালী প্রতিনিধিঃ বাঁশখালীতে উপজেলা স্বাস্থ্য কপ্লেক্সের ১ চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এ কারনে চিকিৎসকের নিজ বাড়ীসহ ৫ বাড়ী ও একটি বেসরকারী হাসপাতাল লকডাউন করা হয়েছে। এটা বাঁশখালী উপজেলার প্রথম করোনা সনাক্ত।

জানা গেছে, বাঁশখালী হাসপাতলের চিকিৎসক ও করোনা ভাইরাস পরীক্ষার নমুনা সংগ্রহণ বিভাগের দায়িত্ব প্রাপ্ত ডাক্তারের শরীরে করোনা ভাইরাস ধরা পডে।

মঙলবার রাতেই তার নমুনা পরীক্ষায় করোনা পজেটিব আসে।করোনাভাইরাস পজেটিব হওয়ায় ওই চিকিৎসককে বর্তমানে চট্র্রগ্রাম নগরীর আন্দারকিল্লা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বাঁশখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তিনি সর্বশেষ রোগী দেখেন ৮ এপ্রিল । এদিকে গতকাল বুধবার উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ডাক্তারের বৈলছড়িস্থ বাড়িতে ২ টি, ডাক্তারের দক্ষিন জলদী মনছুরিয়া এলাকায় দাওয়াত খেতে যাওয়া তিন আত্মীয় বাড়ি এবং চাম্বলের বেসরকারি ন্যাশানাল হাসপাতালকে লকডাউন করা হয়েছে বলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোমেনা আক্তার জানান ।

এদিকে বুধবার উপজেলার প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত চিকিৎসক হওয়ায় উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ, চিকিৎসকসহ সরকারি কর্মকর্তাদের নিয়ে এক জরুরি বৈঠক করেন নির্বাহী কর্মকর্তা মোমেনা আকতার ও থানা পুলিশের ওসি রেজাউল করিম মজুমদার ।

তাছাড়া ওই চিকিৎসকের চেম্বার চাম্বলের ন্যাশনাল বেসরকারি হাসপাতাল লকডাউন করে দিয়েছে প্রশাসন। অপরদিকে বৈলছডি ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডে তার নিজ বাসভবন, ওই এলাকার ২টি রোগীর বাডি ও পৌরসভার মনছুরিয়া গ্রামের এক আত্মীয়র বাডিও লকডাউন করে দিয়েছে পুলিশ।

চিকিৎসক করোনাভাইরাসে আক্রান্তের খবর এলাকাজুড়ে ছডিয়ে পডলে সাধারণ মানুষজনের মধ্যে আতংক ছডিয়ে পডেছে ।প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ার পর উপজেলা প্রশাসন, পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ব্যাপক তৎপরতা লক্ষ্য করা গেছে।

এ ব্যাপারে থানা পুলিশের ওসি রেজাউল করিম মজুমদার জানান, বাঁশখালী হাসপাতালের চিকিৎসক এর শরীরে করোনাভাইরাস পজেটিব ধরা পডায় তার নিজ বাডিসহ ৫ টি বাডি লকডাউন করে দেয়া হয়েছে । তাছাড়া তার চেম্বার চাম্বলের ন্যাশনাল হসপিটাল নামক একটি বেসরকারি হাসপাতালও লকডাউন করা হয়েছে ।

উপজেলায় প্রথম করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মেলায় পুরো এলাকাজুড়ে নজরদারি ও সাধারন মানুষকে সচেতন হতে এবং সরকারি বিধিনিষেধ মেনে চলার অনুরোধ জানিয়ে প্রচারনা বাড়ানো হয়েছে বলেও তিনি জানান ।

এদিকে বৈলছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান কফিল উদ্দিন বলেন, বৈলছড়ির গর্ব, কৃতি সন্তান, ডা: আসিফুল হক মানুষের চিকিৎসা সেবা দিতে গিয়ে, নিজেই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আমরা তার আশু রোগ মুক্তি কামনা করছি, মহান আল্লাহ যেন তাকে সুস্থ করে আমাদের মাঝে ফিরিয়ে দেয়, আমীন। আমরা বৈলছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ তার এবং তার পরিবারের পাশেই আছি।

তিনি বলেন, বাঁশখালী মাননীয় সাংসদ এবং বাঁশখালী উপজেলা প্রশাসন তার এবং তার পরিবারের সার্বক্ষনিক খোঁজ রাখছেন।
বৈলছড়ি ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের ডাঃ আসিফের বাড়ীসহ আরো ২টি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। বৈলছড়ি ইউনিয়ন বর্তমানে সর্ব্বোচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে, আগামী ১৪ দিনের জন্য ইউনিয়নের সর্বস্তরের নাগরিককে সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করে চলাচল এবং লাল পতাকা চিহ্নিত বাড়ীঘর, ঐ সমস্ত বাড়ীর লোকজন থেকে নিরাপদ দুরত্ব বজায় রেখে চলাচল করা, সন্ধ্যা ৬টার পর ঘর থেকে বের না হওয়ার সরকারী নির্দেশ মেনে চলা, চা দোকান, হোটেল রেস্তোরা বন্ধ রাখা বিনা প্রয়োজনে ঘর থেকে বের না হওয়ার বাঁশখালী উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে নির্দেশ জারী করা হয়েছে বলেও জানান।

এ বিভাগের আরও খবর

আপনার মতামত লিখুন :

Your email address will not be published.