চট্টগ্রামে হাত বাড়ালেই মাদক

1

দিলীপ তালুকদার, সিটি নিউজঃ চট্টগ্রাম মহানগরীতে ইদানিং বেড়ে গেছে মাদকের ব্যবসা। নগরীর পাড়া-মহল্লা থেকে শুরু করে সর্বত্র এখন মাদকের হাট বসছে।

বখাটে, ভবঘুরে, মাস্তান, মাদকসেবী ও ছিঁছকে চোরেরা এই মাদক ব্যবসায় জড়িত। পুলিশকে ম্যানেজ করেই নগরীতে মাদক ব্যবসা দিন দিন প্রসারলাভ করছে।

এছাড়া পাড়া-মহল্লায় গড়ে উঠা কিশোর গ্যাং জড়িয়ে আছে মাদকের ব্যবসায়। একদিকে সন্ত্রাস-খুনাখুনি ও অন্যদিকে মাদক ব্যবসা এখন জমজমাট নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডে। মাদকসেবীদের উৎপাতে সাধারণ মানুষ অতীষ্ট।

দেশে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ দফতর ও পুলিশ থাকলেও জনগণ কোন নিস্তার পাচ্ছে না মাদকের উৎপাত থেকে। মাদক সেবীরা ছিনতাই, অপহরণ, খুন, চুরি-ডাকাতিসহ নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। তারুণ্য ও যুবকেরা মাদকাশক্ত হচ্ছে। সমাজকে বিষাক্ত ও কলুষিত করছে।

স্থানীয় পুলিশ মাদকের স্পটগুলো চিহ্নিত করতে পারলেও কোন অভিযান চালায় না। বরং বখরা নিয়ে আসে। ছাত্র/ছাত্রীরা মাদকের প্রতি ঝুঁকছে। এতে করে অভিভাবকরা আতংকিত ও উদ্বিগ্ন।

 

এ বিভাগের আরও খবর
1 Comment
  1. Nahim says

    যেভাবে বুঝবেন আপনার সন্তান বা পরিবারের কেউ মাদকাসক্ত-

    * সামান্য ব্যাপারেই রাগ করা, বিরক্ত হতে থাকা

    * মিথ্যা কথা বলা, অতিরিক্ত সতর্ক থাকা

    * একা একা থাকা, অধিক রাত জেগে থাকা

    * কথা দিয়ে কথা না রাখা, স্মৃতিশক্তি কমে যাওয়া বিচার-বিবেচনা বিচক্ষণতা ক্ষমতা কমে যাওয়া

    * মূল্যবান জিনিসপত্র চুরি করা বা না বলে তা বিক্রি করে দেয়া

    * প্রতিদিন নির্দিষ্ট বা অনির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত বাড়ির বাইরে থাকা

    * অদ্ভুত অদ্ভুত ধরনের বন্ধু-বান্ধবের আনাগোনা বেড়ে যাওয়া

    * পোশাক-পরিচ্ছদের রুচির বড় রকমের পরিবর্তন হওয়া

    * আসক্ত বন্ধুদের বা অসম লিঙ্গ ও বয়সীদের সঙ্গে মেলামেশা করা বা বন্ধুত্ব করা

    * পড়াশোনায় অমনোযোগী হওয়া, স্কুল/ কলেজ পালানোর অভ্যাস হওয়া

    * রিডিং রোমের দরজা লাগিয়ে বন্ধু বান্ধবীদের নিয়ে পড়ার কথা বলে আড্ডাবাজি করা

    * নিজেকে আড়ালে রাখা বা হঠাৎ অতিরিক্ত আধুনিকভাবে নিজেকে উপস্থাপন করা

    * স্বাস্থ্য নষ্ট হয়ে যাওয়া, চেহারা সুরতও নষ্ট হয়ে যাওয়া, অপরিচ্ছন্ন হয়ে যাওয়া

    * প্রতিদিনই বিভিন্ন বায়নায় হাত খরচ বেড়ে যাওয়া

    * ক্ষুধা নষ্ট হয়ে যাওয়া বা একটা বিশেষ খাবার (মাংস, চানাচুর, কোল ড্রিংক) অতিরিক্ত পরিমাণে খাওয়া।

    * ধর্মীয় আচার আচরণ বা সোশ্যাল নর্মসকে অবজ্ঞা করা বা ইত্যাদি বিষয়ে অদ্ভুত যুক্তি তর্ক উপস্থাপন করা বা ঠাট্টা তামাশা করা।

    পরিবারের মাদকাসক্ত লুকানো বা লজ্জার বিষয় নয়, হত্যা, আত্মহত্যা, গুপ্তহত্যা, ইত্যাদি যে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা, দুর্ঘটনা এড়াতে জরুরি সেই মাদকাসক্ত ব্যক্তিকে মাদক নিরাময় কেন্দ্রে দিয়ে সুস্থ করে তুলুন।

    মাদকাসক্ত একটি রোগ যা চিকিৎসায় ভালো হয়।

    মাদকাসক্তির চিকিৎসা বা পরামর্শের জন্য যোগাযোগ করুনঃ 01879-407622 বা 01749-020081

    [ মাদকসেবীকে ঘৃণা নয় বরং মাদককে ঘৃণা করুন]

আপনার মতামত লিখুন :

Your email address will not be published.