জিয়াই ক্ষমতা দখলের রাজনীতি চালু করেনঃ আমু

0

সিটি নিউজ ডেস্কঃ  আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু বলেছেন, জিয়াউর রহমানই এদেশে ক্ষমতা দখল ও নির্বাচনে কারচুপির সংস্কৃতি চালু করেন। তার সময়েই ব্যালট বাক্স হ্ইাজ্যাকের সংস্কৃতি চালু হয়।

আজ সোমবার (১১ মার্চ) জাতীয় সংসদে প্রশ্নত্তোর পর্বে বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ আমির হোসেন আমু এ কথা বলেন।

আমির হোসেন আমু বলেন, নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে বিএনপি নানা কূটকৌশল অবলম্বন করছে। ২০১৪ সালে তারা নির্বাচন বানচালেল চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে। এবার অংশ নিয়েও তারা সঠিকভাবে নির্বচানটা করেনি। নির্বাচনের নামে তারা মনোনয়ন বাণিজ্য করল। বিএনপি বুঝে গেছে জনগণের ভোটে তাদের পক্ষে কোনদিন ক্ষমতায় যাওয়া সম্ভব নয়।

যতদিন না তারা ক্ষমতায় থেকে নির্বাচন দিয়ে ক্ষমতায় যেতে না পারবে, ততদিন পর্যন্ত নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে বারবার তারা একই পথ অবলম্বন করছে। তিনি বলেন, বিএনপি প্রতিটি ক্ষেত্রে এ সরকারের নেতিবাচক দিকগুলো তুলে ধরতে চায়। সরকার যখন পদ্মা সেতু করে তখন বলে এটা আওয়ামী লীগের ব্রিজ। যখন বিনা পয়সায় বই দেয় তখন তারা ২ কোটি বই পুড়িয়ে দেয়। তাার ভেবেছিল এই বই আওয়ামী লীগের লোকজনের সন্তানেরা পড়বে।

আমু আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে এদেশে স্বাধীনতার চেতনা মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছিল, সংবিধানকে ছুড়ে ফেলা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধুর মত শেখ হাসিনার সৎ ও দক্ষ নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আবার বাংলাদেশ পরিচালিত হতে শুরু করেছে। শেখ হাসিনার সময়েই বঙ্গবন্ধু হত্যার ও একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার হয়েছে। আমু বলেন, ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের নির্বাচনের সময় যারা তত্ত্বাবধায়ক সরকারে ছিলেন তারা সবাই ছিলেন খালেদা জিয়া ঘরের লোক। ড. ফখরুদ্দীন, মইন উ আহমেদসহ সবাই ছিলেন খালেদা জিয়ার আমলে সুবিধাভোগী। খালেদা জিয়া ভেবেছিলেন তাদের নেতৃত্বে নির্বাচনে অংশ নিয়ে তিনি আবারও ক্ষমতায় যাবেন। কিন্তু জনগণ তার সেই স্বপ্ন চুরমার করে দিয়েছে।

 

এ বিভাগের আরও খবর

Leave A Reply

Your email address will not be published.